বটতলার সাহিত্য চর্চায় প্রথম আলো


সিনিয়রদের শুশীল সাজার তেব্র বাসনায় বাসাতে প্রথম আলোর এক কপি রাখা হলেও ওটার খেলার পাতা বাদ আর কিছু দেখি না। বিশেষ করে একমাত্র ফারুক ওয়াসিফ ভাইয়ের লেখা বাদে এডিটোরিয়ালের পাতা তো দেখাই হয় না। তবে এর একটা পাতা অনেক মনোযোগ দিয়ে দেখি। সত্যি তা দেখার মতো । তা হলো এর  খেলার পাতা। সেই সাথে মাঝে মাঝে বের করা সাময়িকীর মধ্যে রস আলো আর স্টেডিয়ামের প্রতি একটা অন্যরকম দুর্বলতা আছেই।

ইউরো ফুটবল শুরু হলো।  প্রিয় দল স্পেন হওয়াতে প্রথম আলোর স্টেডিয়াম পাতায় যে লেখা ছাপা হলো তা পড়তে ইচ্ছে হলো। ………..

সেখানে লেখা ছিল ….

গোধূলির আকাশের মতো লাজরাঙা সারা কার্বোনেরোকে দেখার জন্য আবারও প্রস্তুত হন। প্রস্তুতি নিন সেই রোমান্টিক দৃশ্যের জন্যও: কার্বোনেরোর গোলাপি সিক্ত ঠোঁটে ইকার ক্যাসিয়াসের প্রগাঢ় চুম্বন!

মিডিয়া যে কতো ঘৃণিত আর ধিক্কৃত উপায়ে নারীকে বাজারজাত করে। আর হতভাগা নারী সেই বাজাজাত করণে স্বেচ্ছায় কিভাবে এগিয়ে আসে তার উদাহরণ তো প্রথম আলোর নকশা ছিল। এখন সাথে যোগ হলো স্টেডিয়াম। লেখাটিকে প্রথম মনে হয়েছিল রোমন্টিক উপন্যাস। পরে মনে হলো চটি সাহিত্য। তার ও কিছু পরে মনে হলো কোনো পতিতা পাড়ার গ্যাং খদ্দের ডাকছে …

শিরোপা নিয়ে উল্লাস, ল্যাপ অব অনারসহ যাবতীয় অনানুষ্ঠানিক আনুষ্ঠানিকতা সেরে এক ফাঁকে স্পেন অধিনায়ক এলেন সুনয়না টিভি সাংবাদিক কার্বোনেরোকে সাক্ষাৎকার দিতে। পৃথিবীর ইতিহাসের সংক্ষিপ্ত, কিন্তু রোমান্টিকতম সাক্ষাৎকার শেষে প্রেয়সী কার্বোনেরোর ঠোঁটে ক্যাসিয়াসের সেই চুম্বন! ২০১০ বিশ্বকাপ জেতার পরপর সারা বিশ্বের কৌতূহলী চোখের সামনে চুমু এঁকে দিয়েছেন। টানা দ্বিতীয় ইউরো জেতার আনন্দে আরেকটি চুম্বন দিতে দোষ কোথায়!

জনপ্রিয় সাহিত্যিক শওকত ওসমানের একটা উক্তি মনে পড়ে। তিনি বলেছিলেন ” ক্ষুধার্ত কালে ভদ্রে অন্যের খাওয়া দেখে খুশি হয়। কিন্তু মতি মিয়া না জানি কি দেখে খুশি হয়েছেন। ….

তা নাহলে কি এই ধরণের খবর প্রথম আলোয় ছাপতেন তিনি। ঘেন্নায় আমি লেখাটির সেন্সর করে শেয়ার কর্লাম।………. ফিচারটির চুম্বক অংশ শেয়ার করছি।

ইউরোপের সমাজে অনেক দিনের ধারণা বড় স্তনের নারীরাই সুন্দর। পীনোন্নত স্তন কম বয়সের প্রতীক। কেবল পুরুষের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য নয়, নিজের বয়সকে কমিয়ে, নিজেকে আনন্দ দেওয়ার কাজটিও করে উন্নত স্তন। এ ধারণার বশবর্তী নারীরা নিজেদের সাজাতে এবং ছোট স্তনকে বড় করতে বেছে নেন সিলিকন স্তন। কয়েক দফা অস্ত্রোপচারের পরে স্তনকে ফুলিয়ে তোলেন এক কাঙ্ক্ষিত স্তর পর্যন্ত। কিন্তু, প্রচলিত এ ধারণার হয়তো অবসান হতে চলেছে। ইউরোপের নারীরা দেহ নয়, নিজের কাজ দিয়েই সমাজে সম্মানজনক অবস্থান করে নিতে চাইছেন।

বাকিটুকু আছে নিচের লিংকে……..

নতুন প্রজন্ম সিলিকন ……………….

এখন বুঝিনা দেশের শুশীল সমাজ চিৎকার ম্যাৎকার না করে চুপ থাকেন কিভাবে। সত্যি অসহ্য লাগে এই বেহায়াপনা। আইন ভারতীয় চলচিত্র আমদানি সেন্সর করেছে। চটি সাহিত্য সেন্সর করলো কবে তা জানি না। আপনাদের কারো জানা থাকলে জানাবেন। 😥

Advertisements

4 thoughts on “বটতলার সাহিত্য চর্চায় প্রথম আলো”

    1. আর কয়েকদিন পর দুষ্টু বালকদের লুকিয়ে চটি পড়তে হবে না। প্রথম আলো তাদের জন্য টু ইন ওয়ান হয়ে দাড়াচ্ছে।
      মুহাহাহাহা।
      এই জলসায় দুই মজা। চটি + খবর = প্রথম আলো।

    1. মতি মামা আর আমারে লিখার সুযোগ দিল কই। আমি তো খালি কেচ্ছা গাইলাম।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s