মাইলসকে গান গাইতে না দেয়া আজকের অঘটন নাকি ঐতিহাসিক প্রতিশোধ


রোল ফিতার ক্যাসেটের যুগ। খুব সম্ভবত সিক্স সেভেনে পড়ি। হামিন ভাইয়া-শাফিন ভাইয়া উনাদের কাউকেই চিনতাম না তখন।  কিন্তু চিনতাম তাঁদের সুর। সেই গানগুলো এখনো ঘুমানোর আগে লেপমুড়ি দিলে মিউজিক প্লেয়ার বাদেই শুনতে পাই। আজ হটাৎ ভাবছিলাম আজকে প্রিয় ব্যান্ডটিকে গান গাইতে না দেয়ার পেছনে কোনো ঐতিহাসিক সুড়সুড়ি কাজ করে নাইতো ? অবশেষে মনে হয় ধরতে পেরেছি………..। কিংবা পারি নাই.. বাকিটুকু প্রিয় পাঠক আপনাদের দায়িত্ব। আমি বরলে চাইছি আজকে মাইলকে গান গাইতে না দেয়া আর কিছু না, ঐতিহাসিক প্রতিশোধ। এ প্রতিশোধ ভারতীয় ইগো ফিরে পাওয়ার পক্ষে। সুর নকলকারী অনু মালিকের সেই ক্ষতিপূরণ সুদের আসলে উসুল করে নেয়ার প্রতিশোধ। এ প্রতিশোধ দীর্ঘ ৭ বছরের দহন জ্বালা মেটানোর প্রতিশোধ……..। আর সেটাও বাংলাদেশের বুকে।

নিঃস্ব করেছো আমায় কি নিঠুর
ছলনায়
তুমিহীনা এ হ্রদয় আমার
একাকী অসহায়
পেয়ে হারানোর বেদনায়
পুড়ে চলেছি সারাক্ষণ
কেন তুমি মিছে মায়ায়
বেধছিলে আমায় তখন
ফিরিয়ে দাও আমার এ প্রেম
তুমি ফিরিয়ে দাও
……………………….এভাবে চলে যেও
না…………।

এটা শাফিন-হামিন ভাইয়াদের ব্যান্ড মাইলসের অনেক বিখ্যাত একটি গানের লিরিক।

মার্ডার মুভির পোস্টার

এবার আসছি আরেকজন তথাকথিত নন্দিত পরিচালক অনু মালিক কাগুর একটা গান নিয়ে। মার্ডার মুভির সেখানে ঐ গানের লিরিক ছিলো…..

জাআনা তেরে পেয়ার ম্যাঁ মেরা দিল খো গ্যায়া

ঘেড়ি ঘাড়ই তেরি আঁখওকা দিওয়ানা হো গ্যায়া।

তেরি দাম সে আয়্যি হ্যা মেরে ঘার মে ইয়ে সাবা

তেরি আঁখো সে জ্বালা হুয়া হ্যায় মেরে দিল কা ইয়েহ দিয়া।

ও জাআনা আ জাআনা ও মেরি জাআনে আআনা।

ও জাআনা আআকে দেখ ইয়েহ মেরে ইশক ইনতিহা

মেরা দিল ইয়েহ দুয়া কারে, ইয়ে মিলান হো সাদআ

তেরি রাঙ সে সাজই রাহে মেরে ঘার কি ফাজা

মেরি শাম ইঁউ সাজি রাহে যারা খুল কে মুসকুরা

তেরি দিলকাশ কা রাজ কিয়া, জারা মুজকো ইয়ে বাতা

ও জাআনা আ জাআনা ও মেরি জাআনে আআনা।

ও জাআনা আআকে দেখ ইয়েহ মেরে ইশক ইনতিহা

তু জো সামনে আ গ্যায়ি , মেরা দিল তো চালা।

তুঝে বাস ঠাকতা রাহা কাঁহা হোশ রাহা

তেরে আপাস রাহা কারু মেরে দিল নে ইয়ে কাহা

মুঝে ইয়েহ বাতা কে ম্যাঁয় কিয়া কারু

মেরা দিল খো গায়া

ও জাআনা আ জাআনা ও মেরি জাআনে আআনা।

ও জাআনা আআকে দেখ ইয়েহ মেরে ইশক ইনতিহা………………………..।

বেশি বুদ্ধিরাখার দরকার নাই। চোখ কান অন্ধ না হলে যে কেউ বুঝতে পারবেন এই গানটা প্রথমোক্ত গানটার নকল। আর মাইলস অনু মালিকের এই ভণ্ডামি মেনে নেয়নি। তারা যথারীতি প্রতিবাদ করেছিলো। আর আজ কি ভারতীয় সঙ্গীত শিল্পীরা মিলে তারই প্রতিশোধ নিলো ? উল্লেখ্য আজকের কনসার্টে ঐ গানটার শিল্পী আমির জামাল উপস্থিত ছিলেন কিনা জানিনা। তবে ঐতিহাসিকভাবে যেদিন বাংলাদেশী সংস্কৃতি বাংলাদেশীদের হাতেই ধর্ষিত হলো সেদিন নিগ্রহের শিকার হলো মাইলস। কারণ হয়তো তারা সেদিন অনু মালিকের চৌর্য্যবৃত্তির সাথে আপোস করে নাই। এরজন্য এমন চরম মূল্য নিজের দেশে দিতে হবে কে জানতো ???

আজকের কনসার্ট নিয়ে অনেক নিউজ হবে। অনেক বোদ্ধা অনেক লম্বা চওড়া কথা বলবেন। কিন্তু আমার তো মনে হয় এটা ছিলো এক ঐতিহাসিক প্রতিশোধ। ভারতীয়রা নিজে পারেনি। অনু মালিকের চৌর্য্যবৃত্তি ধরা পড়ার পর তার প্রতিশোধ তারা নিলো আজকের এই ঘটনার মধ্য দিয়ে। কিন্তু এটুকু ভেবে মাইলস ব্যান্ড শান্তি পেতে পারে যে সেদিন অনু মালিক করেছিলো অবৈধ কাজ। আর আজ তাদের প্রতি যেটা ঘটেছে সেটাই অবৈধ আর তারা আজও পূর্ববৎ বৈধ। তাই তাদের এটা নিয়ে ভাবনা চিন্তার অবকাশ নাই। গো এহেড মাইলস, আওয়ার সাপোর্ট ইজ অলওয়েজ উইথ ইউ। স্টিল নাউ উই প্রাউড টু বি  আ বাংলাদেশী উইথ ইউ। উই স্টিল সার্চিং মেলোডি ইন ইউর গিটার। প্রুভ দ্যাট ডিয়ার ব্রো, ইউর গিটার নেভার লাইজ।

Advertisements

9 thoughts on “মাইলসকে গান গাইতে না দেয়া আজকের অঘটন নাকি ঐতিহাসিক প্রতিশোধ”

  1. Are vai nokole to B D fast apni jodi cinema ba gan dekha ba sune thaken taholei bujte parben je bd nokol chara r kisui pare na?indiyar sate kono vabei bd r tulona chole na?ATA BOKA,KANA,BODHER SOBAI JANE!!!!!!!!”‘!”!!!””‘!!”‘

  2. রিপোর্ট করা উচিৎ পাঠকের সহজবোধ্য করে , কিন্তু এই লেখাটা যে কি লিখল , বুঝলাম না। হয়ত এত জ্ঞানী নই তাই বুঝি নি ।

  3. vai mne ja ashe tai likhben na.aktu vhabe chinte likhben.ta nahole public ar gali khaite khaite mara jaben.Bokchud kothakar.

  4. জেনে না জেনে আপনারা আজাইরা তর্ক করছেন মনে হচ্ছে ।
    যেটা হয়েছে সেটা অর্গানাইজারদের ভুল হতে পারে কিন্তু তার সাথে LRB কে জড়ানো নোংরামি ।
    Hamid Ahmed – এর এভাবে ভাষা ব্যাবহার করা খুবই খারাপ হইছে ।
    LRB ভারতীয়দের হয়ে কাজ করছে এটা বিশ্বাস করতে বলছেন ??? কি খাইয়া লিখেন এইসব ?
    ফেসবুকে একজনের কমেন্ট দেখলাম ; নীচে দিলাম ।
    —————————————
    Comments from someone was there …..

    বিসিবি সেলিব্রেশন কনসার্ট ও একটি সত্য ঘটনা!
    ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম থেকে এল আর বি’র সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার শামিম এর আপডেট এলো ‘অর্ণব অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’ স্টেজে উঠলো। শো শুরু হয়ে গেছে, কাম শার্প!’
    ঘড়িতে তখন বিকেল ৪ টা ৫৩ মিনিট। এল আর বি’র গাড়ি তখন
    পল্টনের জ্যামে। আইয়ুব বাচ্চু অস্থির হয়ে গেলেন। বললেন ‘হেঁটেই চলে যাই চল! দেরি হলে আমার দুর্নাম, দেশের দুর্নাম।’
    সত্যি সত্যি নেমে গেলেন তিনি, সাথে আমি ও ব্যান্ডের সবাই। ১৫ মিনিট হাঁটার পর স্টেডিয়ামে পৌঁছে যাই সবাই।
    সোলস গান গাইছে স্টেজে তখন। এল আর বি’র সবাই স্টেজের কাছে গিয়ে বসতেই অরগানাইজারদের একজন এসে বললেন ‘বস আপনাকে এরপর স্টেজে উঠতে হবে মনে হয়!’ এ বি বললেন
    ‘আমরা না আফটার মাইলস?’ ব্লু টিশার্ট আর লাল ক্যাপ
    পরা অরগানাইজার বললেন ‘আমি আমার বসকে আস্ক
    করে আসি।’ ২ মিনিট পর আবার এসে অরগানাইজার বললেন
    ‘মাইলস এখনো আসেনাই তাই আপনাদের
    এখুনি স্টেজে উঠতে হবে বস! এবং আপনারা ৫ টা গান গাইবেন
    প্লিজ!’ এখানে বলে রাখি এল আর বি’র স্লট ছিল ২০ মিনিট ও
    ৪ টা গান। ৫ টা গান গাইতে হবে শুনে ব্যান্ডের ড্রামার রুমেল
    কে এ বি বললেন ‘লিস্টে ‘হকার’ টা ঢুকিয়ে দে।’
    গিটার নিয়ে রেডি সবাই, রুমেল চলে গেলেন স্টেজে তার ড্রামস
    ঠিক করতে।
    সোলস শো শেষে নামতেই হাই
    হ্যালো করে স্টেজে উঠে গেলো এল আর বি।
    আমি বসি স্টেজের কর্নারে রাখা টুলটায়। পাশে প্রোগ্রামের
    এম সি নুসরাত ও অরগানাইজারদের কয়েকজন। ২ টা গান
    গেয়ে শেষ করে এল আর বি, ঠিক তখন স্টেজের
    পাশে নীচে দেখা গেলো এসে দাঁড়িয়েছে মাইলস এর সবাই।
    ৪টা গান শেষ হবার পর নুসরাত মাইক হাতে উঠে দাঁড়ায় পরের
    কিছু ঘোষণা করার জন্য, দ্যাখে এ বি আর একটা গান
    গাইতে শুরু করে দিয়েছে। অবাক হয়ে আমার দিকে তাকালে তার
    নিরব প্রশ্নের উত্তর দেই আমি ‘লাস্ট মোমেন্টে এল আর
    বি’কে ৫টা গান গাইতে বলা হয়েছে।’ নুসরাত হেসে রিলাক্স
    হয়ে বসে পড়ে।
    ‘হকার’ গানের মাঝখানে সেই
    অরগানাইজারকে পাশে নিয়ে ইনটেলিজেন্স এর একজন
    এসে আমাকে বলেন ‘ভাই ওনারা কি আরো ১৫ মিনিট গান
    গাইতে পারবেন আযানের বিরতির আগ পর্যন্ত?’ ঘড়িতে তখন
    ৫টা ৫০। ‘আযানের বিরতি ৬টা ১০ মিনিটে’, বললেন তিনি।
    আমি তার কথা শুনে স্টেজে গিয়ে প্রথমে গিটারিস্ট
    মাসুদকে বলি এ কথা কারন এ বি তখন গান গাচ্ছিলেন। গিটার
    সলো শুরু করতেই আমি এ বি’র কানে গিয়ে বলি এটা।
    তিনি অবাক হয়ে আমার দিকে তাকিয়ে মাথা নেড়ে সায় দিলেন
    শুধু। যারা লাইভ দেখেছেন টিভি তে তারা আমাকে দেখেছেন
    একটা ব্ল্যাক টিশার্ট ও জিন্স পরা আমি এ বি’র
    কানে কথা বলছি। প্রমান দেয়ার জন্য বললাম কথাটা। কেউ
    লাইভ মিস করলে প্লিজ চ্যানেল নাইন এর কাছ থেকে ফুটেজ নিয়ে দেখে নিতে পারেন।
    ‘উড়াল দিবো আকাশে’ গেয়ে এবং আমাদের জাতীয় সঙ্গীতের প্রথম ৪ লাইন গিটারে বাজিয়ে তাদের শো শেষ করে এল আর
    বি ৬টা ৭ মিনিটে। অরগানাইজারদের সবাই এবং ইনটেলিজেন্স এর ভদ্রলোক আইয়ুব বাচ্চুকে ধন্যবাদ
    দিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তাদের সাহায্য করার জন্য।
    এই হচ্ছে সত্যি ঘটনা।
    এখন প্রশ্ন এখানে আইয়ুব বাচ্চু বা এল আর বি’র
    দোষটা কোথায়?
    শো শেষ হতে না হতেই হামিন ও শাফিন আহমেদ
    যে নোংরা ভাষায় ফেইসবুক এ আইয়ুব বাচ্চু’র মতো একজন লিজেন্ডকে অ্যাটাক করলেন তাতে কার সম্মানটা বাড়লো?
    নিজেদের দোষ ঢাকতে গিয়ে এইভাবে অসভ্যর মতো আচরণ
    করে কী প্রমান করলেন তারা?
    অরগানাইজারদেরকে কিছু জিজ্ঞেস
    না করে সত্যি ঘটনা না জেনে এইভাবে ‘নিজেদের এই
    পা চাটাচাটি’ করার মানেটা কী?
    পুনশ্চঃ আমরা নিজেরাই নিজেদেরকে সম্মান দিতে পারিনা, বাইরের দেশের মানুষের কাছ থেকে সেটা আশা করা কতটা ঠিক?
    //// Manju Ahmed

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s