প্রশ্নোত্তর


460256_660373433989351_1553336915_oবুকসেলফ থেকে টেনে নামালাম
বিদ্রোহী কবিতার সেই
বইটা, নাম পূর্বাভাস।
বইয়ের মলাট উল্টে দেখি
শুকনো একটা ফুল।
দেখে মনে হয় কোনো
বোটানির ছাত্রের
যত্ন নিয়ে করা
হার্বেরিয়াম শিট।
জারুল ! কৃষ্ণচূড়া
নাকি গোলাপ
সেটা কবেকার ?
দিয়েছিলো কে?
কেনোইবা দিতে গেল?
কে জানে !!
হুম ! !!
এটা সত্যি যে ফুলেদের শবাধারে
কোনো সেনোটাফ কিংবা
নামফলক থাকেনা, যা দেখে
চিনে নেয়া যাবে তাদের,
তাই হয়তো তাদের স্মৃতি
অনেকটা আমার মতই অবলুপ্ত।
বুকসেলফে আমার প্রিয়
পাঠ্যবইগুলোকে ঠিকই
সাজিয়ে রেখেছি
থরে থরে, তবু !!
আমার স্মৃতির আয়নাটা
এতো ঘোলাটে কেনো ?
ওহ !
ভেবে দেখলাম বুক সেলফের
বইগুলোর মত ঠিকই
প্রিয় গানগুলো সেভাবেই আছে
সিডি-হার্ডডিস্কে সেভ করা
প্রিয় ছবিটা, ঐ ধূসর একটা পেইন্টিং
একটা জলরং, দুটো তেলরং
সবঠিকঠাক দেয়ালে ঝুলছে।
তবু সে ছবিটি কোথাও নেই;
বছরের পর বছর কোনো
কাগজে নয়, ক্যানভাসে নয়
হৃদয় আখরে রক্তরঙে
এঁকেছি যে ছবিটা
নেই, কোথাও নেই !
কেনো নেই, নেই কেনো ??
কেনো ? কেনো ! কেনো ?
তাই মনে হয়–
আমার অতীত অনেক উদ্ভান্ত
চিন্তাগুলো অসহ্য রকমের
বর্বর, অসহ্য মনে হয়
স্মৃতির সে বিশৃঙ্খলায় ভরা
এক একটা ঝড়ো হাওয়ার দাপট।
সেখানে আশার প্রজাপতি
অবহেলায় উড়তো
পাল্লা দিতো
গানচিলের ডিগবাজিতে
নিশুতি আভায়
পেঁচা বাদুড়ের সাথে
খেলতো লুকোচুরি ।
আজ হারিয়েছে সব
নেই গল্প, নেই গান
সপ্নগুলো যেন আজ
এক বেহাত বিপ্লব
চিন্তাগুলো বড় দাঙ্গাবাজ
ব্যাখ্যাগুলো স্বৈরতান্ত্রিক
ভাবনাগুলো অপ্রস্তুত
আর এই আমি
রয়ে গেছি, ছিলাম !
ঠিক যেমনি !
আজ থেকে মাত্র
দুই দশক আগের
জীবন বৈসাতিতে
মেলানো যায় না
সব প্রশ্নোত্তর।

উৎসর্গ: কবি নিভৃতচারী।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s