সবাই কান পরিষ্কার করেন, কিছু অশ্লীল কথা কমু।


1381315_714088831996615_7286546138404227072_nআজ নিউ-ভিশন বাসে কাওরানবাজার যাইতেছিল জনৈক খবিশ সাংবাদিক। সে এমন এক ঘটনার প্রত্যক্ষ্যদর্শী হইয়া গেছে যারপর তার মনে খালি প্রশ্ন জাগতেছে। আরেহ!! নওশীন-হিল্লোলের কীর্তি নিয়া লুকজন এতো লাফ-ঝাঁপ মারে ক্যান? আজব ব্যাপার। ধার্মিক পণ্ডিত ওয়াহাবীদের লাগবে না, নাস্তিকরাই পারলে নওশীন-হিল্লোলরে কতল করার ফতোয়া দিয়া দেয় পারলে। কারণ আর কিছু না তাদের গুরুদের পেটে লাত্থি মাইরা দিছে এরা। ক্যারে ভূপেন !! ব্যবসা কি শুধু তোদের দলের লোক আইমিন হুক্কা আজাদ-টাচলিমা, নায়লা নাইম, সানি লিওন এরাই করবে ? নওশীন-হিল্লোল কি তোগো ভাত মাইরা দিলো ?

আর ঈমানদার ভাই বেরাদার!! আপ্নারা যারা এই ভিড্যু দেইখ্যা গোষ্ঠী উদ্ধার করতেছেন তাদের বলি, অন্যরে শোধরানোর আগে নিজে শোধরান। রাইতের বেলা ভালো কৈরা জানালার পর্দা টাইনা দিয়া আপনিও নটি অ্যামেরিকা ছাইড়া বসেন। টেন্সান কৈরেন না মদের গ্লাস আর বেগানা নারী সাথে নিয়া থাবা-থাবাও ঐখানেই বসতো। সুতরাং এতো ভাব ক্যান।

নওশীন-হিল্লোরের জন্য এইটা ব্যবসা। এটা আদি ঐতিহাসিক ব্যবসা যা এদেশে আরো অনেকেই করে। সো এইটা নিয়া এতো মাতামাতি, নাচানাচি, দাপাদাপি করার কিছু নাই। তার থিকা বরং চলতি পথে টাইট জিন্স পরা কাউকে দেখলে পেছন থিকা বাঁকা চোখে তাকানো বন্ধ করেন। ওড়নার ফাঁক ফোঁকর খুইজা উঁকিবুকি মারা কমান। আর যাদের ওড়না থাকেই না সেখানে টিভি মনিটরের মতো হা কৈয়া চাইয়া থাকনও ছাইড়া দেন।

আইজ অফিসে যাওয়ার সময় উক্ত খবিশ সাংবাদিকের ডান পাশে বসা হাফ মুরুব্বি ঘোচু টাইপ এক ব্যক্তি অনেকক্ষণ তার চেলার সাথে মার্ক্সবাদ, মুর্গিবাদ, ঘোড়াবাদ, গাধাবাদ কপচাইতে আছিলেন। কপচানি চলার মুহুর্তেই শ্যামলী আড়ং এর কাছ থেকে একটা অপেক্ষাকৃত সুন্দর দর্শন গাঠনিক ও পোশাকী বৈচিত্র্যের মেয়ে হুমমুড় করে দৌড়াইয়া উঠলো। খবিশের ঠিক পাশে দাঁড়ানোতে সে খুব সহজেই বুঝছে মেয়েটা বাংলা সিনেমার দৌড়ানি শেষের মত ফোঁস ফোঁস করে হাফাচ্ছে। ব্যাস মার্ক্সবাদ – হেগে লবাদ সব চুলোয়। হা কৈয়া তারও দৃষ্টি যথাস্থানে।  এক পঞ্চাশোর্ধ বয়সের কাকু বৈসা আনমনে তসবি টিপতেছিলেন। হটাৎ কৈরা বন্ধ হইয়া গেলো তার ধর্মকর্মও।

এদিকে কানে হেডফোন লাগাইয়া অশ্লীল হিন্দি গান শুনতেছিলো উক্ত বিরক্তিকর খাটাশ, খবিশ ও চরিত্রহীন সাংবাদিকটা। জ্যামে আটকাইয়া মেজাজ খিচড়ে ছিলো তার। মাঝখান দিয়া এমন লাইভ অ্যাকশান তার সহ্য হয় নাই। আবেগে বেশ চিক্কুর দিয়া সে বৈলা উঠলো আংকেল আন্টি কি ছাইড়া চৈলা গেছে?? এতো উদাস ক্যান। বাসভর্তি লোক লিভিং সিনেমা দেখা বাদ দিয়া একটা বিরক্তিকর মুচঅলা খবিশের দিক চাইলো। যেনো পারলে ঐখানেই কোনো ছিঁড়া খ্যাঁতা দিয়া জাইত্য ধৈরা খবিশটারে মহসিন সাহেবের হাতে তুইলা দেয়। কিংবা পারলে গুম করা বাদেই গুমগঞ্জের শীতলক্ষায় ভাসাইয়া শীতল কৈরা দেয়।

খবিশও হনুমানের মত মুখ ভেংচি দিয়া আমজনতাকে নির্মল বিনোদন বঞ্চিত করলো। সিট ছেড়ে দিয়ে চলমান বিনোদনকে ধমক দিয়া সিটে বসাইয়াই শুধু দিলোনা। কটমট কৈরা চাইয়া কর্তৃত্তের সুরে তার টাইট জিন্সের কাছা খুইলা গিরা ঢাকতে বাধ্য করলো। একইসাথে উক্ত চলমান বিনোদন ঢাউস সাইজের ব্যাগটা কোলে নিয়া বসাতে জনতা সম্মুখ বিনোদন হইতেও  বঞ্চিত হইলো।

তখন খবিশ সাংবাদিকটা Taylor Swift এর গান শুনতে শুনতে নিতান্ত দুর্বল ঈমানের সাথে অনেকগুলো চিন্তা করতে থাকে। এদিকে সে প্রগতিশীল সেকুলারও না। এইটা ভাবতে গিয়া তার মন প্রায় তিতা করল্লার মত তিতকুটে হৈয়া পড়ে। সে রাগের সাথে ভাবতে থাকে_
১. যারা মেয়েদের পোশাকের স্বাধীনতার কথা বলে তারা ভালো কথাই বলে, প্রগতির কথা বলে। কিন্তু রাস্তাঘাটে এমুন আইসাইট রেপিং এর ক্ষেত্রে কোথায় থাকে তাদের জবান?
২. যারা নিজেকে অন্যের ভার্চুয়াল খাদ্য বানিয়ে মজা লুটে তাদের পরিণতি কি আদেও ভালো হয়। আর এতে সাময়িক উত্তেজনা বৃদ্ধি। বেশি উত্তেজিত বান্দাদের বামহাত প্যান্টের পকেটে পাঠানো বাদে জনতাই বা কতটুকু উপকৃত হয় তা কি কেউ জানেন ?
৩. খবিশ সাংবাদিকের না হয় ছোট বোন নাই। সে তাই মেয়েদিকে চলমান বিনোদন হিসেবে দেখার মত উদার চিন্তা করতে পারেনি। উপরন্তু নিতান্ত বেরসিকের মত ছিট ছেড়ে দিয়ে আপাতত আইরেপিং থেকে কিংবা আরো বড় বিপর্যয় থিকা তারে বাঁচাইয়া দিলো। কিন্তু বাকিরা কিংবা ঐ খবিশটা স্বয়ং তাকে বোন না ভেবে বউ ভেবেও বসতে পারতো, তখন !!!
৪. অনেকে তসবি নিয়ে ঘুরেন, দেওয়ানবাগী,  ঝুড়িবাগী, ইন্দুরবাগী, বেজিবাগী, উদবাগী, বাগদাশবাগী, কুতুববাগীর মুরিদ। অমুক ফেরকা, তমুক ফেরকার অনুসারী তারা কি ভেবে দেখেছেন আপনার ধর্মকর্মের সময়টাতে আপনার মেয়ে কিংবা বোন কি করে বেড়াচ্ছে? আপনার ছেলে কিংবা ছোটভাই আসলে কি পছন্দ করছে পড়ার বইপত্র, গুপ্তদা-অমিপিয়ালের লেখালিখি, ফেসবুক নাকি নটি আমেরিকা ?
৫. আপনারা যারা মেয়েদের নাক মুখ চোখ পুরোটা পারলে একটা বস্তায় ভৈরা ঘুরাইতে চান তারা কি ভেবে দেখেছেন এর একটা লিবারেল ধাঁচ হতে পারে ? কিংবা বজ্র আঁটুনি ফস্কা গেরোর কথাটা কি জানেন না।
৬. আপনারা যারা নিজে বাসায় আন্ডারওয়্যার পইরা ঘুরেন, বউকে পরান ঢিলা পালাজ্জো আর মেয়েকে বুটিকের কাজ করা সাদা হাফপ্যান্ট পরাইয়া ইনসেন্টিক ফ্রিক মজা লুটেন। তারা কিভাবে ভুইলা যান রাস্তা আর ঘর এক না। আর পুরো দেশটা আপনার বাপের রাজত্ব না।
৭. শরীয়তের দোহাই দিয়ে যারা আইরেপিংকে পুরো মেয়েদের দোষ বলে যায়েজ করেন, কিংবা সেকুলারিজমের দোহাই দিয়ে যারা মেয়েদের কুত্তার খাদ্য বানাতে চান তারা কি কখনো নিজের কিংবা অন্যদের মনস্তাত্ত্বিক উন্নয়নের কথা ভেবেছেন ?
৮. শ্রদ্ধাভাজন ফ্যাশান সচেতন আপু, আপনারা ফ্যাশানের কচুটা বোঝেন, ঝাঁপ পাড়েন তেরো হাত। নাইলে শীতের দেশে আন্ডারগার্মেন্টস হিসেবে ব্যবহৃত টাইটস খালি খালি পরে রাস্তায় ঘুরেন ? জাইনা রাখুন উহা পরিলে খোদ ম্যারিকা-বিলাতেও লোকজন উপ্রে অন্তত একটা ছিড়াফাটা জিন্স পইরা নেয়।
৯. কষ্ট পাইলেও বলতে হচ্ছে, আপনারা সত্যি বলদিনী নাইলে বিচওয়্যার কিংবা লাভ-মেকিং নাইট ড্রেস পালাজ্জো পরে রাস্তায় নেমে দর্শ-ধর্ষকদের  আইসাইট লাভ মেকিং এর সুযোগ করে দেন নাকি ?

১০. বয়স হইছে, দৌড়াইতেছেন ভালো তাই বইলা একটু সামালকে চলছে সমস্যা কোথায় রে ভাই। আপনি যেভাবে ভাবছেন কুলাঙ্গার দর্শক তো আর তা ভাবছে না, তারা ভাবছে এবং দেখছে অন্যকিছু। কল্পনার চোখ দিয়ে আরো অনেক কিছু দেখতে চাইছে তারা। আর তাদের এভাবে দেখিয়ে কি লাভ আপনাদের।

এটা আজ সকাল১১: ১৫ মিনিটে নিউ-ভিশন বাসআরোহী প্রত্যক্ষদর্শী এক খবিশের স্বীকারোক্তিও কিছু রাগমিশ্রিত কু-ভাবনা। কেউ নিজের সাথে মিলাইয়া খবিশ সমতূল্য হবেন না এটাই আশা করি। আর এহেন খবিশের কু-কথা শোনা কিংবা অন্যের চক্ষু ও মনো:কাম থেকে নিজেকে রক্ষা করতে অভাগার দেশে সামলে চলুন।

 

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s