Category Archives: ইতিহাস

বিশ্ববাণিজ্যে গুজরাটের আধিপত্য

surat-diamond_660_070312085248ব্রিটিশ  সাম্রাজ্যবাদীরা যখন নতুন জয় করা অঞ্চল হিসেবে আফ্রিকার জঙ্গলের নানা  স্থানে নিজেদের প্রভাববলয় বিস্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে, তখন তাদের প্রজাদের  কেউ কেউ একই পতাকাতলে থেকে আরো অনেক দূর বিস্তৃত করেছে নিজেদের চিন্তার  পরিসর। তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন আল্লিদিনা বিশ্রাম (Allidina Visram)—  যিনি কুচ তথা বর্তমান ভারতের গুজরাট অঞ্চলের বাসিন্দা ছিলেন। একেবারে  কপর্দকশূন্য অবস্থায় মাত্র ১২ বছর বয়সে তিনি বর্তমান তাঞ্জানিয়ার জাঞ্জিবার  অঞ্চলে পৌঁছেছিলেন। এরও প্রায় ১৪ বছর পর তিনি সেখানে একটি ছোট্ট দোকান  প্রতিষ্ঠা করেন, যা ধীরে ধীরে একদিন তার সৌভাগ্যের দ্বার উন্মোচন করে দেয়।  পর্যায়ক্রমে ১৯০০ সালের প্রথম দিকে কেনিয়া থেকে উগান্ডার প্রায় ৫৮০ মাইল  বিস্তৃত এলাকায় তিনি প্রতিটি বড় বড় রেলস্টেশনের পাশে একটি করে দোকান  খুলেছিলেন, যা থেকে রেলওয়েতে কর্মরত হাজারো মানুষের প্রয়োজনীয় মালসামানা  জোগান দেয়া হতো। এর পর তিনি ভিক্টোরিয়া লেকের কাছাকাছি জিঞ্জাতে আরো কিছু  দোকান খুলেছিলেন। Continue reading বিশ্ববাণিজ্যে গুজরাটের আধিপত্য

Advertisements

চানাচুরের ইতিহাস

1423395902_chanachurধনী-গরীব আর সামাজিক শ্রেণিভেদ এড়িয়ে একটি খাবার সবার অবসরে নিত্যসঙ্গী। একটু কাঁচা পেঁয়াজ-মরিচের কুচি আর কয়েক ফোঁটা সর্ষের তেলের সাথে মুড়ি-চানাচুরের মাখানো রেসিপি সত্যি বর্ণিল করে তুলতে পারে ঘরে কিংবা বাইরের যেকোনো আড্ডা। ঘরের বৈঠক খানায় আলিশান থালা-বাসন, নিরন্নের শতছিন্ন থালা কিংবা আড্ডাবাজদের সম্বল খবরের কাগজে সমান দ্যুতি ছড়ানো এই খাবারের নাম চানাচুর। ভারতবর্ষে জন্ম অথচ একদিনও চানাচুর খাননি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর হবে। কিন্তু কেউকি ভেবে দেখেছি কোথা থেকে শুরু হয়েছিলো এই চানাচুরের যাত্রা। কাদের হাত ঘুরে কালের খেয়ায় ভর করে এই চানাচুর মুড়ির সাথে কিংবা চকমকে প্যাকেটে করে হাজির হলো আমাদের হাতে হাতে কিংবা বৈঠক খানার বৈঠক-রাস্তার পাশের আড্ডাবাজিতে? Continue reading চানাচুরের ইতিহাস

তালগাছ বৃত্তান্ত

ae6a3c6a4a205210846806da7c7192bfইহুদি ধর্মবিশ্বাসে অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তালগাছ। একটু খেয়াল করলে দেখা যাবে ইস্টার উৎসবের আগে যে রবিবার আসে তাকে বলা হয় পাম সানডে যেটা কারো একার নয়। তবে এ সময়ে জেরুজালেমবাসীর উদ্দেশ্যে একটি আশ্চর্যজনক তাল গাছ স্রষ্টার থেকে উপঢৌকন হিসেবে এসেছিলো বলে মনে করা হয়। অর্থডক্স ইহুদি ও জায়নবাদীদের অনেকে মনে করে ঐ তালগাছ অল্টার অব ডেভিডে তথা দাউদের বেদির কাছাকাছি কোনো এক স্থানে হবে। জায়নবাদী দর্শনে তালগাছ সমৃদ্ধি ও শান্তির প্রতীক, এদিকে জনপ্রিয় বাংলা প্রবাদ, বিচার মানি কিন্তু তালগাছটা আমার। আসলে পবিত্র কুরআন, বাইবেল এবং ওল্ড টেস্টামেন্ট সবখানেই তালগাছের উল্লেখ থাকাতে তালগাছের ধর্মীয় গুরুত্বটা বহুলাংশে বেড়ে গেছে।
তাইতো বাঙালি দর্শনে এতো গাছ থাকতে আর কিছু না Continue reading তালগাছ বৃত্তান্ত

১৯৭১ : ভেতরে-বাইরে নিয়ে কিছু কথা

90067_1অনেকে ইনবক্সে বললেন। আমার ছোট ভাই এইমাত্র ফোন দিয়ে বললো ভাইয়া খন্দকার সাহেবের বইটা নিয়ে কিছু বলো। বইটা কি কিনেছো ? সত্যিই তো ফেসবুক চালাতে গেলে গরম ইস্যু নিয়া হিস্যু না করলে বিপদ। আর আমি কিনা এতো গরম বিষয় পুরোটাই কম্বলের বাইরে বাইর কৈরা দিতেছি, ক্যাম্নে কী ? Continue reading ১৯৭১ : ভেতরে-বাইরে নিয়ে কিছু কথা

জায়োনিজম: সংঘবদ্ধ অবস্থান, দখলবাজি আর সমঝোতাই যার মূলমন্ত্র

UZSP_logo_test1অনেক দিন থেকে কোনো পলিটিক্যাল রিসার্স আটিক্যাল পড়া হয়না। গতকাল কি মনে করে অর্ধেক পড়ে ফেললাম সায়েঘ এর লেখা বিখ্যাত প্রবন্ধ Zionist Colonialism in Palestine’ । পড়ে আর যাইহোক ভাবনার বদল হয়নি। উপরন্তু পূর্বতন ধারণাগুলো আরো পাকাপোক্ত হয়েছে। জায়োনিস্ট রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে ইজরাইলের পূর্বসূরীরা তিনটি বিষয়ে সবথেকে গুরুত্ব দিয়েছিলো। সায়েঘ সেগুলোকে বিশ্লেষন প্রসঙ্গে বলেছেন. Continue reading জায়োনিজম: সংঘবদ্ধ অবস্থান, দখলবাজি আর সমঝোতাই যার মূলমন্ত্র

গুণ্ডে নিয়ে সেই গুণ্ডামি আর প্রথম আলোর নয়া ভণ্ডামি

2014_05_17_7_2_b১৯৭১ সালে পাক-ভারত যুদ্ধ। এইরে সেরেছ কাম!!। মতি মিয়া এইডা তুমি কি কইলা। তাইলে কি, যতোক্ষণ তোমাদের হাতে বদনা, টয়লেট খুইজা পাবিনারে মদনা। গুণ্ডে মুভি নাহয় কইলো তাই দেইখ্যা তোমারেও কইতে হবে !!! ফারুকী ভাইয়ের বৃহন্নলা রাজনৈতিক তত্ত্বের পোস্টমর্টেমে জাতি যখন ব্যস্ত তখন ঘটে গেছে অনেক গরম ঘটনা। আসলে নাথিং কুল ইনসাইড, ইটস হট, রিয়েলি হট। কোনো রাজাকার নয়, কোনো বিএনপি জামাতের পত্রিকা নয় এটা যশরাজ ফিল্মের মুভির ডায়লগও না। প্রথম আলো চা বেচা মোদিরে মহান বানাইতে গিয়া একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধরে পাক-ভারত দাঙ্গা বানাইয়া ছাড়ছে। Continue reading গুণ্ডে নিয়ে সেই গুণ্ডামি আর প্রথম আলোর নয়া ভণ্ডামি

গগণ হরকরা থেকে রবি ঠাকুর আর আমাদের জাতীয় সংগীত

জাতীয় সঙ্গীত নিয়ে আবেগ-বিবেক নাচা গানা সবই হয়েছে। আলোয় এসেছে গীতিকার। হারিয়ে গেছে সুরকার। আধুনিক অভিধায় বলতে গেলে মাইলসের গান লোপাট করে দিয়ে অনু মালিক যা করেছিলো মহামতি ঠাকুর সাপের কাজ অনেকটা সিরামই ছিলো। তবুও শুশীল ডিসকোর্সের কথা মধুতূল্য। কি আর কৈতাম। আমরা যারা চাষা ভূষা চেতনা যাদের একটু কম স্পর্শ করে আসুন গগন হরকরার গানটাই শুনি। ঠাকুরের সাথে মাতম তুলতে ইচ্চে করেনা এমন না। তয় দিলে চোট পাই। যে মৌলবাদী হিন্দু লোকটা নিজেকে ধর্মনিরপেক্ষ বলে প্রচার করেছে। ব্রহ্মা-বিষ্ণু-শিব বাদ দিয়ে নিজের মাথা দিয়েছে ইংরেজপ্রভুর পদতলে তার প্রতি আমার বিন্দুমাত্র শ্রদ্ধা নাই। যেটুকু ঘৃণা আর ধিক্কার আছে সেটা প্রকাশ করতে গিয়েও এনার্জি লস করতে চাইনা। এরপরেও যারা ঠাকুরীয় সঙ্গীত নিয়ে নেচে কুঁদে মরতে চায় তাদের বলবো দূরে গিয়া মুখে ছাই ঘস।  আমার কাছে একজন জীবনানন্দ, একজন সুকান্ত কিংবা সবার উপরে নজরুল অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ভালো কাব্যপ্রতিভা থাকলেও ঠাকুর সাপ তার পদলেহী আচরণের জন্য ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যাত। তার অনাসৃষ্টি আর ব্যক্তি ঠাকুর দুটোর প্রতিই তীব্র বিতৃষ্ণা আর ধিক্কারের বমি। আসুন গগন হরকরার গানটির লিরিক্স দেখি। গানটি শুনি….। তারপর ঠাকুরকে লাত্তি মারলেও দেশের প্রতি সম্মান জানিয়ে একবার গাইতে চেষ্টা করি জাতীয় সঙ্গীত। হৃদয়ে ধারণ করি এটাকে।

Continue reading গগণ হরকরা থেকে রবি ঠাকুর আর আমাদের জাতীয় সংগীত

মুড়ির ইতিহাস

ভাষাগত আর পরিবৈশিক প্রেক্ষিতগত বৈচিত্র্য থাকলেও মুড়ির রয়েছে স্বতন্ত্র ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট। আমরা ব্লগ, ফেসবুক আর বন্ধু মহলের আলোচনায় যেভাবে তুই মুড়ি খা, ভাই মুড়ি খান সুইটহার্ট তুমি মুড়ি খাও শব্দগুলো ব্যবহার করি তখন কেউ ভেবে দেখেছি কি কবে কখন কিভাবে এই মুড়ির উদ্ভব হয়েছিলো। আমরা জানি যে পাথর যুগের শিকারী সংগ্রাহক মানুষ একসময় মাংস ঝলসে খেতে শুরু করে।

প্রিয় ঝালমুড়িটা.. আহ !!

পরে তারা যাযাবর জীবন ত্যাগ করে স্থায়ী আবাসন তৈরি করে কিংবা তাদের খাদ্য সংগ্রাহক থেকে পরবর্তীধাপের খাদ্য উৎপাদনকারী সমাজে প্রবেশ করার সময়টা থেকেই শুরু হয়েছিলো মুড়ির ইতিহাস। মাংসের পাশাপাশি নব্য প্রস্তুর যুগের মানুষ যখন থেকে শস্যকণাকেও খাদ্য হিসেবে গ্রহণ ও উৎপাদন শুরু করেছিলো তখন মাংস ঝলসানোর মতো মৃৎপাত্রে করে মুড়ি ভেজে খাওয়া শুরু হয়ে থাকতে পারে। Continue reading মুড়ির ইতিহাস