Category Archives: মানবাধিকার

অনলাইনে ইজরাইলের প্রতিবাদকারীরাই সঠিক পথে আছেন

3181146484_853c812e17_oগুপ্তগোষ্ঠী ফ্রিম্যাসনারির কথা। আমার লেখা প্রথম একক বই। বইটির কাজ করতে গিয়ে সব কিছু লেখা হয়ত সম্ভব হয়নি, কিছু বিষয়ে আমার ধারণাও ছিল অস্পষ্ট। বিশেষ করে সেই লক্ষ বছর আগে কাল্ট সভ্য সমাজে কিভাবে চলে। কিভাবে একটি মৌলবাদী ইহুদি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার নীলনকশা করে তার বাস্তবায়ন করা হয়। বিশ্বের নানা দেশে ঘটে যাওয়া সম্মিলিত কেলেঙ্কারির রহস্যটাই বা কি? Continue reading অনলাইনে ইজরাইলের প্রতিবাদকারীরাই সঠিক পথে আছেন

Advertisements

সেকুলারিজম যখন এক আগ্রাসী ও মৌলবাদী ধর্মের নাম

MANJUL_CARTOON_300912pol_Advani_Gadkari_BJP_Secularismঅবাক হচ্ছেন!! আমি যদি বলি বাংলাদেশের নাস্তিক্যবাদ এবং ধর্মব্যবসার মূল শেকড়টা একই জ্ঞানতাত্ত্বিক পাটাতনে প্রোথিত। প্রথমে অবাক হবেন, কারণটা বুঝতেও একটু গভীর চিন্তা খুব জরুরী। বিশেষ করে বুঝতে হবে এই দুটো ধারায় কাদের স্বার্থের বীজ বপন করা হয়েছে। আর এর থেকে ফসলগুলোই বা কে ঘরে তুলতে পেরেছে!!

কারা আসলে মানুষের আবেগ এবং চিন্তা নিয়ে ব্যবসা করে নিজের আখের গুছিয়ে নিতে চেয়েছে। একটু খেয়াল করুন, বুঝবেন। কয়দিন থেকে অনলাইনে কিছু তথাকথিত নাস্তিক নামধারী বেজন্মা গাজাকে গাঁজা, গণহত্যাকে উইকেট পড়া হিসেবে কাউন্ট ডাউন করছে। কেউবা শুয়োরের মত দাঁত বের করে বলছে Continue reading সেকুলারিজম যখন এক আগ্রাসী ও মৌলবাদী ধর্মের নাম

নির্মম বসন্ত

jp-8আর কত লাশ পড়লে
তবে, আমরা পেরোবো
এ অসহ্য সভ্যতার
নির্মম কড়িকাঠ।
আর কত রানা-প্লাজার ধ্বসে
আমরা খুঁজে নেবো
শিল্প বিপ্লবের ইতিকথা।
আর কত নিরীহ মানুষ
হটাৎ গুম হয়ে গেলেও
চেতনার গুহ্যদ্বারে ওম দেবে
বিধ্বংসী গণতান্ত্রিক শকুন ? Continue reading নির্মম বসন্ত

আমরা যারা ডাক্তার পেটাই !!!

dr-baby-620x349ঘরের খাও বনের মোষ তাড়াও!!!
ঘটনাটা বাস্তবে না হোক ডাক্তারি পেশার সাথে অনেকটাই যায়। আর ঘরের ভাত খেয়ে অন্তত বনে না হোক ঢামেক এ গিয়ে রোগী খেদানো, নিউরোসার্জারি, হার্ট সার্জারি, অ্যাবডোমেনাল বিবিধ সার্জারির জটিল কাজ মুফতে করেন কিছু চিকিৎসক। দিনে মাত্র তিন থেকে পাঁচটা সিঙ্গাড়া আর কয়েক কাপ লাল চায়ের বদলে চলে তাদের সেবাদান। মাস শেষে সরকার থেকে ফুটো পয়সাও বরাদ্দ নেই তাদের জন্য। যা নিজ চোখে দেখে না আসলে বিশ্বাস করতাম না। ফলে এতোদিন মানবাধিকার নিয়ে অনেক কথা উঠলেও এবার ডাক্তার অধিকারের বিষয়টি ঘুরে ফিরে এসেছে।

আজ দৈনিক পত্রিকাগুলো!!!
যখন জানালো ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ছয় অনারারি চিকিৎসকের ওপর দুর্বৃত্তরা হামলে পড়েছে তখন অন্তত আমার জন্য সহ্য করা কঠিন হয়েছে। বিশেষ করে সংবাদবাণিজ্য আর লেফাফা দুরস্তির ষণ্ডাতান্ত্রিক সাংবাদিকতায় আমার কখনোই আগ্রহ ছিলোনা। ষণ্ডাতন্ত্র ও বুদ্ধিবৃত্তিকে এক করে ফেলার মতো ভুল সবাই করলে আমি অন্তত করতে আগ্রহী নই। পাশাপাশি কতিপয় ফরমায়েশি সাংবাদিকের মতো ডাক্তার নাম শুনলেই পশ্চৎদেশ জ্বালা করার উপযুক্ত কারণ Continue reading আমরা যারা ডাক্তার পেটাই !!!

এফ.জি. এম তথা নারীযৌনাঙ্গচ্ছেদ নিয়ে ধর্মীয়-সামাজিক অবস্থানের বিপরীতে পশ্চিমা অপপ্রচার

বলতে চাইছি পশ্চিমের নারী বিষয়ক আলোচনায় স্থান পাওয়া কুখ্যাত Female genital mutilation (FGM) এর কথা। মধ্যযুগের ক্যাথলিক ধর্মাচারের বিরুদ্ধে প্রোটেস্ট্যান্টরা প্রটেস্ট করার অন্যতম মূল কারণ এটা। বিশেষ করে চার্চ নির্ভর ক্যাথলিক ধর্মাচারে মঠের প্রাধান্য দিতে গিয়ে নারী-পুরুষের স্বাভাবিক সম্পর্ককে অস্বীকার করে বৈরাগ্যবাদ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে। অনেক নির্মম ও অপমানজনক হলেও সত্য যে এই সময় থেকেই বিকৃত যৌনাচার যেমন Bisexuality, Lesbianism, Gay,এর পাশাপাশি উদ্ভব ঘটেছিলো নেক্রোফিলিকপেডোফিলিক বর্বরদের। নৃ-বিজ্ঞানের বাইরে থেকেও যাঁরা যৌনতার উদ্ভব ও বিকাশ তথা ইতিহাস নিয়ে আগ্রহ দেখান কিংবা কিঞ্চিত পড়ালেখা করেন তাদের বিষয়টা জানা থাকার কথা বিকৃত রুচির উদ্ভাবন হয়েছে সামাজিক বাধা কিংবা নৈরাজ্যকে উপজীব্য করেই। Continue reading এফ.জি. এম তথা নারীযৌনাঙ্গচ্ছেদ নিয়ে ধর্মীয়-সামাজিক অবস্থানের বিপরীতে পশ্চিমা অপপ্রচার

ইতিহাসের ধারায় মিশরের গণহত্যা

আন্দোলনকারীর আর্তচিৎকার

মিসরের স্বৈরশাসক হোসনি মোবারকের পতনের পর যে প্রশ্নটি বড় হয়ে দেখা দিয়েছিল, তা হচ্ছে মিসরের রাজধানী কায়রোর তাহরির স্কয়ারের বিপ্লব কি শেষ পর্যন্ত তার লক্ষ্যে পৌঁছুতে পারবে? যারা সামরিক-বেসামরিক সম্পর্ক নিয়ে কাজ করেন, তারা জানেন সেনাবাহিনী একবার ক্ষমতা নিলে সে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার প্রক্রিয়া পিছিয়ে যায়। মিসরের ক্ষেত্রে এমনটিই হতে যাচ্ছিল। ইতিহাস সাক্ষী দেয়, অনেক বিপ্লবই তার লক্ষ্যে পৌঁছতে পারেনি। ফ্রান্সের সাধারণ কৃষকরা রুটির দাবিতে ১৭৮৯ সালে ভার্সাই দুর্গের পতন ঘটিয়ে ফরাসি বিপ্লবের সূচনা করেছিলেন। কিন্তু এরপরের চার বছরের ইতিহাস অনেক করুণ। সেখানে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম হয়েছিল। আর এর মধ্য দিয়ে ১৭৯৯ সালে নেপোলিয়নের একনায়কতন্ত্রী শাসন শুরু হয়েছিল। ফরাসি বিপ্লব রাজতন্ত্রের পতন ডেকে আনলেও নেপোলিয়ন নিজেকে সম্রাট হিসেবে ঘোষণা করে (১৮০৪)সেই রাজতন্ত্রই আবার চালু করেছিলেন। Continue reading ইতিহাসের ধারায় মিশরের গণহত্যা

শিল্পাচার্য জয়নুলের নবান্ন ক্রল পেইন্টিং

image_34664পেইন্টিং বিভিন্ন ধরণের হয়। এগুলোর নামকরণের ক্ষেত্রেও তাই ভিন্নতা লক্ষ  করা যায়। ক্রল পেইন্টিং নিয়ে বিস্তৃত আলোচনা করা একজন প্রত্নতত্ত্বের শিক্ষার্থীর জন্য  বেশ কঠিন। তবুও জয়নুলের নাম শোনর পর থেকে অনেক আগ্রহ জন্মেছিলো এই বিষয়টি কি একটু জানবো। আর জানলে তা আগ্রহীদের জন্য শেয়ার করবো। আভিধানিকভাবে ক্রল পেইন্টিংকে সঙ্গায়িত করার ক্ষেত্রে অনেকগুলো অভিধা লক্ষ করা যায়। এখানে প্রকারতাত্ত্বিক ও গাঠনিক দিককে অনেক বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়ে থাকে। বিশেষ করে কি ধরণের উপাদানের উপর স্ক্রল অংকন করা হবে। আর তা আঁকতে কি ধরণের রঞ্জক উপাদান ব্যবহৃত হবে তা অবস্থা বিশেষে অনেক বেশি গুরুত্ববহ হয়ে ওঠে।  আমরা অভিধানের পাতায় দৃষ্টি দিয়ে পাই……… Continue reading শিল্পাচার্য জয়নুলের নবান্ন ক্রল পেইন্টিং

পৈশাচিক নেক্রোফিলিয়া বা শবাসক্তি (পর্ব-১)

প্SPN_Necrophiliaরত্নতত্ত্বে অধ্যয়ন করতে গিয়ে আমরা অতীত রাজা রাজড়াদের নানা ধরণের অবাক করার মতো খেয়াল খুশির পরিচয় পাই। এর মধ্যে অদ্ভুদ কিছু বিষয় যেমন মানুষের চিত্তকে বিচলিত করে তেমনি কিছু বিষয় আছে যেগুলো শুনলে ঘৃণায় মুখ বিকৃত করতে হয়। আমার একটা অভ্যাস আছে অবসর সময়টুকু বেশিরভাগই কাটাই হয় বই পড়ে কিংবা নেটে ব্রাউজিং করে যেখানে প্রত্নতত্ত্ব আর ইতিহাসই কেন্দ্রে থাকে। আর প্রত্নতত্ত্ব বিষয়ে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই এটা আমাকে এতটাই টানে যে আমার লেখাপড়ার গণ্ডিটা অনেকটা প্রত্নতত্বের মধ্যেই কিভাবে যেন আটকে গেছে। জা. বি প্রত্নতত্ত্ব বিভাগে তখন তৃতীয় বর্ষের মাঝামাঝি পড়ি এমনটা হবে। একটি সংবাদপত্রে ফিচার লেখার প্রস্তাব পেয়ে মিশরীয় মমির কিছু ছবি দেখছিলাম। ফিচার লেখার তুলনায় আমার অনুসন্ধিৎসু চোখ নিবদ্ধ হয় একটি বিশেষ বিষয়ের প্রতি। তখন ঐ প্রবন্ধ শেষ করার কাজ অনেক পিছিয়ে যায়। আমি ভাবতে থাকি অন্য বিষয় নিয়ে। Continue reading পৈশাচিক নেক্রোফিলিয়া বা শবাসক্তি (পর্ব-১)

মিশেল ফুঁকো ও উত্তর আধুনিক চিন্তাকাঠামো

urlবিশিষ্ট দার্শনিক ও উত্তর আধুনিক চিন্তাধারার অন্যতম পুরোধা মিশেল ফুঁকো ১৯২৬ খ্রিস্টাব্দের ১৫ অক্টোবর ফ্রান্সের Poitiers নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। ফ্রান্সের বিশিষ্ট সার্জন পল ফুকো ছিলেন তাঁর বাবা। বাবা তাঁর নাম রেখেছিলেন পল-মিশেল ফুকো, সেই সাথে ইচ্ছা ছিল জ্ঞানচর্চা শেশে ফুঁকো বাবার মতো চিকিৎসক হবেন। শিক্ষাজীবনের প্রাথমিক সময় বেশ ভালোভাবে কাটতে থাকে তার। তবে তাঁর প্রতিভার বিকাশ লক্ষ করা যায় বিখ্যাত জেসুইট কলেজ সেন্ট-স্টানিসলাসে ভর্তির পর। পড়াশোনায় বিশেষ সাফল্য তাঁকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে ফ্রান্সের মানবিক শিক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মক্ষেত্রের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান École Normale Supérieure
– এ প্রবেশের সুযোগ করে দেয়। তবে এখানকার জীবন ফুকোর জন্য ছিল বেশ কষ্টকর। নানা কারণে তিনি প্রচণ্ড অবসাদগ্রস্ততা ও হতাশায় ভুগতে থাকেন। একসময় মানসিক বৈকল্য তাকে মনোচিকিৎসকের স্মরণাপন্ন হতে বাধ্য করে। তিনি এরপর হটাৎ মনোবিজ্ঞানে বিশেষ আগ্রহী হন। Continue reading মিশেল ফুঁকো ও উত্তর আধুনিক চিন্তাকাঠামো

আধুনিকতার নামে নগ্নতা, সভ্যতার নামে কলংকিত ব্যাভিচার যে সমাজে চলে মনে হয় সেই সমাজের মুখে লাথি মেরে সবকটা দাঁত উপড়ে ফেলি।

আমরা প্রত্যেকেই একটি ভাল খবরের প্রত্যাশায় প্রতিদিন কান পেতে থাকি। কিন্তু আস্তে আস্তে বধির হতে চলেছি সুসংবাদের দিক থেকে। আজ সন্ধার দিকে ফেসবুক লগ ইন করতেই চোখে পড়ে দুইটি পেইজ এক্স ফাইল বুমেরাং এর পোস্ট। ওখানে পেজের এডমিনরা শেয়ার দিয়েছেন একটি মর্মান্তিক দৃশ্যের বর্ণনা। বর্ণনা ছিল অনেকটা এমন …

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউ‘র আইল্যান্ডে কে কারা একটি নবজাতকের লাশ ফেলে যায়। সে নবজাতকের লাশকে ঘিরে সেখানে উৎসুক জনতার ভিড় জমে। ছবি: জনি

এই ছোট্ট একটি লাইন আর ছবিটিই ঘটনার বিভীষিকা বোঝাতে যথেষ্ট। আমরা প্রগতিশীলতার বিরুদ্ধে কিছু বলার দু:সাহস দেখাবো না। উদারতা দেখানো ভালো। কিন্তু এই উদারতা যখন উদর স্ফীত করে।  তারপর সেই স্ফীত উদরের প্রতিদান তৃতীয় একটি জীবন পৃথিবীতে আসতে চায় তাকে হত্যা করা কোন ধরণের মনুষ্যত্ব। আধুনিকতার নামে নগ্নতা, সভ্যতার নামে এই কলংকিত ব্যাভিচার যে সমাজে চলে মনে হয় সেই সমাজের মুখে লাথি মেরে সবকটা দাত উপড়ে ফেলি।  খান খান করে দেই এই এই অলীক তাসের ঘরের আদলে প্রস্তুতকৃত জিঘাংসার আতুর ঘর। থুতু নিক্ষেপ করি এই প্রগতিশীলতার মুখে। লাথি মারি এই আধুনিকতার তলপেটে। হায় একটি নিষ্পাপ জীবন এভাবে ঝরে গেল। আমরা সভ্য সমাজ শুধূ তাকিয়ে তাকিয়ে দেখলাম।