Category Archives: রোমান্টিকতা

সেদিন কোনও একদিন…

wallpaper-love-love-31307651-1280-960তারা কথা রাখেনা। কেউ কেউ হয়ত রাখে। নিজের সম্পূর্ণ বিশ্বাস তাদের কারো হাতে তুলে দেয়ার আবেগটা জন্মায় নি আমার মাঝে। ইচ্ছে করে তাই আমার এক একটি নির্ঘুম রাতের দায় সব নষ্ট ভালোবাসার শিকলমুক্ত রেখেছি। বিমুগ্ধতার পরশ বুলিয়ে যাওয়া নিশ্চুপ অন্ধকার কিংবা কৃষ্ণপক্ষের ঘোলাটে চাঁদের পূর্ণ অধিকারটাও তেমনি Continue reading সেদিন কোনও একদিন…

সবাই কান পরিষ্কার করেন, কিছু অশ্লীল কথা কমু।

1381315_714088831996615_7286546138404227072_nআজ নিউ-ভিশন বাসে কাওরানবাজার যাইতেছিল জনৈক খবিশ সাংবাদিক। সে এমন এক ঘটনার প্রত্যক্ষ্যদর্শী হইয়া গেছে যারপর তার মনে খালি প্রশ্ন জাগতেছে। আরেহ!! নওশীন-হিল্লোলের কীর্তি নিয়া লুকজন এতো লাফ-ঝাঁপ মারে ক্যান? আজব ব্যাপার। ধার্মিক পণ্ডিত ওয়াহাবীদের লাগবে না, নাস্তিকরাই পারলে নওশীন-হিল্লোলরে কতল করার ফতোয়া দিয়া দেয় পারলে। কারণ আর কিছু না তাদের গুরুদের পেটে লাত্থি মাইরা দিছে এরা। ক্যারে ভূপেন !! ব্যবসা কি শুধু তোদের দলের লোক আইমিন হুক্কা আজাদ-টাচলিমা, নায়লা নাইম, সানি লিওন এরাই করবে ? নওশীন-হিল্লোল কি তোগো ভাত মাইরা দিলো ?

Continue reading সবাই কান পরিষ্কার করেন, কিছু অশ্লীল কথা কমু।

চিরদিনই

alone-boy-rain-skate-street-Favim.com-65516একা বসে ছিলাম সেদিনের বৃষ্টিতে
ঝর ঝর  ঝরছিল সে দু:খবিলাস
শূন্য হয়েছিল আমার অনুভূতি
বৃষ্টির ঝাপটা আরেকটু বেড়ে গেল
দমকা হাওয়ায় ভীষন শীত করতে থাকে
একটু আলিঙ্গন, তোমার একটু উষ্ণতা
অনেক মনে পড়েছে Continue reading চিরদিনই

গুণ্ডে নিয়ে গুণ্ডামি

গ্রাম বাংলার বহুল প্রচলিত একটা অশ্লীল টাইপের প্রবাদ হচ্ছে ‌’চিমটি দিলে বিচার বসায়, চিপায় নিলে ঘোমটা দেয়’। সম্প্রতী মুক্তিপ্রাপ্ত হিন্দি চলচিত্র Gunday নিয়ে ব্লগার, তামাম ফেসবুকার ও বিশেষ করে দেড় বেটারি সেলিব্রেটি মহলের নাকি কান্না দেখে আমার এই কথা বার বার মনে হয়েছিলো। কিন্তু বিষয়টিকে গুরুত্বহীন মনে করে ঐ ব্যাপারে আগ্রহ দেখাইনি। গুণ্ডে মুভিতে ইতিহাস বিকৃতির ধুয়ো তুলে আমরা যে যেম্নে পারছি চিৎকার দিয়েছি কিন্তু কখনোই এই অপকর্মের মূল শেকড়টা খুঁজতে যাইনি। Continue reading গুণ্ডে নিয়ে গুণ্ডামি

পৈশাচিক নেক্রোফিলিয়া বা শবাসক্তি (পর্ব-১)

প্SPN_Necrophiliaরত্নতত্ত্বে অধ্যয়ন করতে গিয়ে আমরা অতীত রাজা রাজড়াদের নানা ধরণের অবাক করার মতো খেয়াল খুশির পরিচয় পাই। এর মধ্যে অদ্ভুদ কিছু বিষয় যেমন মানুষের চিত্তকে বিচলিত করে তেমনি কিছু বিষয় আছে যেগুলো শুনলে ঘৃণায় মুখ বিকৃত করতে হয়। আমার একটা অভ্যাস আছে অবসর সময়টুকু বেশিরভাগই কাটাই হয় বই পড়ে কিংবা নেটে ব্রাউজিং করে যেখানে প্রত্নতত্ত্ব আর ইতিহাসই কেন্দ্রে থাকে। আর প্রত্নতত্ত্ব বিষয়ে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই এটা আমাকে এতটাই টানে যে আমার লেখাপড়ার গণ্ডিটা অনেকটা প্রত্নতত্বের মধ্যেই কিভাবে যেন আটকে গেছে। জা. বি প্রত্নতত্ত্ব বিভাগে তখন তৃতীয় বর্ষের মাঝামাঝি পড়ি এমনটা হবে। একটি সংবাদপত্রে ফিচার লেখার প্রস্তাব পেয়ে মিশরীয় মমির কিছু ছবি দেখছিলাম। ফিচার লেখার তুলনায় আমার অনুসন্ধিৎসু চোখ নিবদ্ধ হয় একটি বিশেষ বিষয়ের প্রতি। তখন ঐ প্রবন্ধ শেষ করার কাজ অনেক পিছিয়ে যায়। আমি ভাবতে থাকি অন্য বিষয় নিয়ে। Continue reading পৈশাচিক নেক্রোফিলিয়া বা শবাসক্তি (পর্ব-১)

মিশেল ফুঁকো ও উত্তর আধুনিক চিন্তাকাঠামো

urlবিশিষ্ট দার্শনিক ও উত্তর আধুনিক চিন্তাধারার অন্যতম পুরোধা মিশেল ফুঁকো ১৯২৬ খ্রিস্টাব্দের ১৫ অক্টোবর ফ্রান্সের Poitiers নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। ফ্রান্সের বিশিষ্ট সার্জন পল ফুকো ছিলেন তাঁর বাবা। বাবা তাঁর নাম রেখেছিলেন পল-মিশেল ফুকো, সেই সাথে ইচ্ছা ছিল জ্ঞানচর্চা শেশে ফুঁকো বাবার মতো চিকিৎসক হবেন। শিক্ষাজীবনের প্রাথমিক সময় বেশ ভালোভাবে কাটতে থাকে তার। তবে তাঁর প্রতিভার বিকাশ লক্ষ করা যায় বিখ্যাত জেসুইট কলেজ সেন্ট-স্টানিসলাসে ভর্তির পর। পড়াশোনায় বিশেষ সাফল্য তাঁকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে ফ্রান্সের মানবিক শিক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মক্ষেত্রের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান École Normale Supérieure
– এ প্রবেশের সুযোগ করে দেয়। তবে এখানকার জীবন ফুকোর জন্য ছিল বেশ কষ্টকর। নানা কারণে তিনি প্রচণ্ড অবসাদগ্রস্ততা ও হতাশায় ভুগতে থাকেন। একসময় মানসিক বৈকল্য তাকে মনোচিকিৎসকের স্মরণাপন্ন হতে বাধ্য করে। তিনি এরপর হটাৎ মনোবিজ্ঞানে বিশেষ আগ্রহী হন। Continue reading মিশেল ফুঁকো ও উত্তর আধুনিক চিন্তাকাঠামো

হুমায়ুন আহমেদের বই ডাউনলোড

humayun_5সবাইকে অবাক করে না ফেরার দেশে চলে গেছেন হুমায়ুন আহমেদ। কিন্তু রেখে গেছেন অগণিত স্মৃতি। রেখে গেছেন অগণিত বই। এই বইগুলো শতাব্দী ধরে স্মরণ করাবে প্রিয় লেখককে। একজন রবীন্দ্রনাথ, নজরুল কিংবা জীবনানন্দ বাংলা সাহিত্যকে কি দিয়ে গেছেন সেটা দেখার সুযোগ হয়নি। বিশেষ করে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নিয়ে অতিরিক্ত লাফালাফি আর শুশীলদের আতলামি যারপরনাই বিরক্ত করেছে আমায়। সে দিক থেকে বিচার করলে আমার হিসেবে বাংলাদেশী সাহিত্যিক হিসেবে হুমায়ুন আহমেদের স্থান সবার উপরে। বিশেষ করে সংখ্যাতাত্ত্বিক দিকে তিনি ছাড়িয়ে গেছেন সবাইকে। এক্ষেত্রে তিনি মানে,গুণে যোগ্যতা আর নৈপূন্যে সবার থেকে অনন্য।

বইগুলোর নামসহ লিংক..

 ১. একটি সাইকেল এবং কয়েকটি ডাহুক পাখি
২. বাদশা নামদার
৩. হিমু এবং একটি রাশিয়ান পরী
৪. পুফি
৫. ম্যাজিক মুন্সী
৬. বল পয়েন্ট
৭. কাঠ পেন্সিল

Continue reading হুমায়ুন আহমেদের বই ডাউনলোড

ভালবাসার ধূসর রঙ

গভীর রাত। রথি শুয়ে আছে। তার চোখে ঘুম নেই। ইদানিং প্রায়ই তার এমন হয়। ঘুম আসেনা। বিছনায় মরার মত শুয়ে থাকতে ভারী কষ্ট হয় তার। পাশের রুমে বাসার সবাই ভোস ভোস করে ঘুমায়। হটাৎ রথির খুব মন খারাপ হয়। শুধু ওই কেন আরো অনেকেই ঘুমায়। ওদের বাসার দারোয়ানটাও লাঠিতে ভর দিয়ে ঘুমায় । তবুও রথি কেনো রিমির কথাই ভাবে ??  হটাৎ মুচকি মুচকি হাসি আসে রথির। ভাবে এই রিমিটা যেনো কেমন? এতোদিন একসাথে থাকে।

এতো কাছের বন্ধু অথচ রথির মনের কথা পড়তে পারেনি একরত্তি। হারামিটা শুধু শুধু কষ্ট দেয় রথিকে। হটাৎ ছাদের দিকে তাকিয়ে থাকতে থাকতে দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে আসে রথির

হটাৎ  করে উঠে বসে..

ধ্যাত সব অসহ্য।  রিমিইইইইই……. তুই যদি….. Continue reading ভালবাসার ধূসর রঙ

অব্যক্ত অনুভূতি

এই অব্যক্ত অনুভূতি

স্মৃতির দেয়াল চিরে

বিস্মৃতির অতল গহ্বরে

হারিয়ে যেতে চলেছে যখন।

আজগুবি চিন্তায় নিবিষ্ট

হতে বাধ্য হয় যখন

কারো ফেরারি মন

হৃদয়ের অনবরত উল্লম্ফন

থামিয়ে দিতে পারে Continue reading অব্যক্ত অনুভূতি

প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহ্যের বাণিজ্যিক সম্ভবনা ও চলচিত্র ভাবনায় নতুনত্ব।

চলচিত্র দৃশ্যপটে প্রত্নস্থান কান্তজিউর মন্দির

প্রত্নতত্ত্ব বিভাগে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই একটা বিষয় খারাপ লাগতো। আর্কিওলজি বালার পর পর পাব্লিক বলতো আর্কিটেকচার নাকি। কিংবা  দেখেছি নাম শোনা মাত্র মানুষ নাক কুঁচকে মুখটা ঈষৎ বাকিয়ে বলে এটা কি ??

পরে শুধুই ভাবতাম তোরা যে যা বলিস ভাই!! যেমনে হোক প্রত্নতত্ত্বের জন্য প্রচারণা চাই। এখন অনেক ভালো লাগে যখন দেখি ফেসবুকে খোলা কয়েকটি গ্রুপ আর পেজের হাজার হাজার লাইক-কমেন্ট জানান দেয় আমরা প্রত্নতত্ত্ব পড়ি।  তারপর আগ্রহী হয়েছিলাম কিভাবে এদেশের মিডিয়ায় প্রত্নস্থানগুলোকে জনপ্রিয় করে তোলা যায়। পাণ্ডিত্যের মোহে অন্ধ হয়ে প্রত্নস্থানগুলো কখনই পাদপ্রদীপে না আসুক এমনটি কখনো চাইতাম না। তাই একটু অন্যরকম করেই ভাবতে শুরু করি। এখন সময় পাল্টেছে কিছুদিন পর পর আমদের প্রত্নস্থানগুলোর উপর বেশ কিছু প্রামাণ্য চিত্র দেখানো হয় টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে। পত্রপত্রিকাতেও অনেক ফিচার আসে। কিন্তু ভারতীয় বাংলা আর হিন্দির সাথে দ্বৈরথে দিনের পর দিন পিছিয়ে পড়েছে আমাদের মিডিয়া। তার লেজ ধরে চলচিত্রেও আজ দৈন্যদশা। তাই চলচিত্র ভাবনায় নতুনত্ব এখন সময়ের দাবি । তাই এতোদিন শুধুই Continue reading প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহ্যের বাণিজ্যিক সম্ভবনা ও চলচিত্র ভাবনায় নতুনত্ব।