Category Archives: সাহিত্য

সেদিন কোনও একদিন…

wallpaper-love-love-31307651-1280-960তারা কথা রাখেনা। কেউ কেউ হয়ত রাখে। নিজের সম্পূর্ণ বিশ্বাস তাদের কারো হাতে তুলে দেয়ার আবেগটা জন্মায় নি আমার মাঝে। ইচ্ছে করে তাই আমার এক একটি নির্ঘুম রাতের দায় সব নষ্ট ভালোবাসার শিকলমুক্ত রেখেছি। বিমুগ্ধতার পরশ বুলিয়ে যাওয়া নিশ্চুপ অন্ধকার কিংবা কৃষ্ণপক্ষের ঘোলাটে চাঁদের পূর্ণ অধিকারটাও তেমনি Continue reading সেদিন কোনও একদিন…

নির্মম বসন্ত

jp-8আর কত লাশ পড়লে
তবে, আমরা পেরোবো
এ অসহ্য সভ্যতার
নির্মম কড়িকাঠ।
আর কত রানা-প্লাজার ধ্বসে
আমরা খুঁজে নেবো
শিল্প বিপ্লবের ইতিকথা।
আর কত নিরীহ মানুষ
হটাৎ গুম হয়ে গেলেও
চেতনার গুহ্যদ্বারে ওম দেবে
বিধ্বংসী গণতান্ত্রিক শকুন ? Continue reading নির্মম বসন্ত

বৃষ্টিদিন

julayi-telugu-movie-scene-wallpaperঅপেক্ষার প্রহর
শেষ হয়েছে।
এবার আমার…..
কবিতাগুলোর
বদলে যাওয়ার দিন।
রোদ্দুরে তপ্ত
কিছু কৃষ্ণচূড়া
একগুচ্ছ জারুল
কিছু ভুল
কিছু কান্না
আকাশে মেঘ
অঝোর বৃষ্টি।
তারপর…
সে বৃষ্টিতে
ভিজে যাই
শুধু তুমি আমি।

প্রশ্নোত্তর

460256_660373433989351_1553336915_oবুকসেলফ থেকে টেনে নামালাম
বিদ্রোহী কবিতার সেই
বইটা, নাম পূর্বাভাস।
বইয়ের মলাট উল্টে দেখি
শুকনো একটা ফুল।
দেখে মনে হয় কোনো
বোটানির ছাত্রের
যত্ন নিয়ে করা
হার্বেরিয়াম শিট। Continue reading প্রশ্নোত্তর

একজন বাংলাদেশীর মার্কেজ দর্শন

পুরাতন চাইল ভাতে বাড়ে, ছুইট্টা যাওয়া মাছের আকার বাড়ে আর কেউ মরলে তার দাম বাড়ে। একবাক্যে এটাই বাঙালি সংস্কৃতির হালচাল। স্বাধীনতার চার দশক পেরুলো, আমরা পেলাম বাংলাদেশ কিন্তু ঐ হতভাগা বাঙালিই থাকলাম, বাংলাদেশী হৈয়া স্বভাব পাল্টাইতে পারলাম না। বাইরের দেশে এক একটা রথি মহারথি মরে আমরা কাইন্দা এতো বেশি পানি ঝরাই মনে হয় ইন্ডিয়া ফারাক্কা বাঁধ মুর্শিবাদের ধুলিয়ানে না দিয়া আমগের চোউক্ষের সম্মুখে দিলে আরো বেশি ভালা ঐতো।

যাউকগা এইবার বাঙ্গালি কাইন্দা কাইট্যা লেপ-তোষক খ্যাঁতা ভিজাইতেছে Gabriel García Márquez কে নিয়া। বাস্তব কথা হচ্ছে এমুন লোকও কান্নাকাটি করতেছে যারা মার্কেজের একটা বই পড়া দূরে থাক, নামও মরার পর প্রথম শুনছে। ক্যারে ভূপেন এগের সমস্যা কুতায় !!
আমি জোর দিয়ে বলতে পারি বাংলাদেশে উনি কখনোই জনপ্রিয় ছিলেন না, এখনো নন। লোকে মনে করতেছে মার্কেজ নিয়া অন্তত একটা স্ট্যাটাস না কোপাইলে ইজ্জত থাকে না। তাই তারাও নাচতেছে যারা মার্কেজের একটা বইও পড়েনি। Continue reading একজন বাংলাদেশীর মার্কেজ দর্শন

কোন কোন বৃষ্টি কাউকে ভেজায় না (বুক রিভিউ কিংবা ফাউ আলোচনা)

1939763_10152626392170410_1795227864_oঝুম বৃষ্টিতে ভিজে একাকার একটি সদ্য কৈশোর পেরুনো ছেলে স্কুটি চালিয়ে উত্তরা থেকে মিরপুর ফিরছিলো। ঘটনাটি সাজাতে গেলে বলতে হয় আজ থেকে বছর চারেক আগের কথা। শ্যাওড়াপাড়ার মোড়ে কোনো শ্যাওড়াগাছ কিংবা তাতে ভূত পেত্নীর আনাগোণা না থাকলেও সেখানে ছিলো এক হাঁটু পানি। উপর থেকে বৃষ্টির ধারা আর নিচের জমে থাকা এঁদো ড্রেনের পানি স্কুটির চাকায় টংকার তুলে ভিজিয়ে দিচ্ছিলো চারিপাশ। তবুও সেই মানুষটির মনে কিসের যেনো শূন্যতা, হৃদয় গহীনে মরুর শুষ্কতা যাকে স্পর্শ করেনি শ্রাবণের হিমশীতল ধারা। ভাবনার শুরুটা সেখানেই।

মনের অতৃপ্তি, চাওয়া পাওয়ার মাঝে বিস্তর ফারাক, প্রিয়জনের বিশ্বাসঘাতকার চরম নজিরের পাশাপাশি আটপৌরে জীবনের নানা দিক টংকার তুলতো মনের তানপুরায়। স্মৃতির আয়না থেকে টুপ করে ভেসে উঠতো Continue reading কোন কোন বৃষ্টি কাউকে ভেজায় না (বুক রিভিউ কিংবা ফাউ আলোচনা)

মিশেল ফুঁকো ও উত্তর আধুনিক চিন্তাকাঠামো

urlবিশিষ্ট দার্শনিক ও উত্তর আধুনিক চিন্তাধারার অন্যতম পুরোধা মিশেল ফুঁকো ১৯২৬ খ্রিস্টাব্দের ১৫ অক্টোবর ফ্রান্সের Poitiers নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। ফ্রান্সের বিশিষ্ট সার্জন পল ফুকো ছিলেন তাঁর বাবা। বাবা তাঁর নাম রেখেছিলেন পল-মিশেল ফুকো, সেই সাথে ইচ্ছা ছিল জ্ঞানচর্চা শেশে ফুঁকো বাবার মতো চিকিৎসক হবেন। শিক্ষাজীবনের প্রাথমিক সময় বেশ ভালোভাবে কাটতে থাকে তার। তবে তাঁর প্রতিভার বিকাশ লক্ষ করা যায় বিখ্যাত জেসুইট কলেজ সেন্ট-স্টানিসলাসে ভর্তির পর। পড়াশোনায় বিশেষ সাফল্য তাঁকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে ফ্রান্সের মানবিক শিক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মক্ষেত্রের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান École Normale Supérieure
– এ প্রবেশের সুযোগ করে দেয়। তবে এখানকার জীবন ফুকোর জন্য ছিল বেশ কষ্টকর। নানা কারণে তিনি প্রচণ্ড অবসাদগ্রস্ততা ও হতাশায় ভুগতে থাকেন। একসময় মানসিক বৈকল্য তাকে মনোচিকিৎসকের স্মরণাপন্ন হতে বাধ্য করে। তিনি এরপর হটাৎ মনোবিজ্ঞানে বিশেষ আগ্রহী হন। Continue reading মিশেল ফুঁকো ও উত্তর আধুনিক চিন্তাকাঠামো

হুমায়ুন আহমেদের বই ডাউনলোড

humayun_5সবাইকে অবাক করে না ফেরার দেশে চলে গেছেন হুমায়ুন আহমেদ। কিন্তু রেখে গেছেন অগণিত স্মৃতি। রেখে গেছেন অগণিত বই। এই বইগুলো শতাব্দী ধরে স্মরণ করাবে প্রিয় লেখককে। একজন রবীন্দ্রনাথ, নজরুল কিংবা জীবনানন্দ বাংলা সাহিত্যকে কি দিয়ে গেছেন সেটা দেখার সুযোগ হয়নি। বিশেষ করে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নিয়ে অতিরিক্ত লাফালাফি আর শুশীলদের আতলামি যারপরনাই বিরক্ত করেছে আমায়। সে দিক থেকে বিচার করলে আমার হিসেবে বাংলাদেশী সাহিত্যিক হিসেবে হুমায়ুন আহমেদের স্থান সবার উপরে। বিশেষ করে সংখ্যাতাত্ত্বিক দিকে তিনি ছাড়িয়ে গেছেন সবাইকে। এক্ষেত্রে তিনি মানে,গুণে যোগ্যতা আর নৈপূন্যে সবার থেকে অনন্য।

বইগুলোর নামসহ লিংক..

 ১. একটি সাইকেল এবং কয়েকটি ডাহুক পাখি
২. বাদশা নামদার
৩. হিমু এবং একটি রাশিয়ান পরী
৪. পুফি
৫. ম্যাজিক মুন্সী
৬. বল পয়েন্ট
৭. কাঠ পেন্সিল

Continue reading হুমায়ুন আহমেদের বই ডাউনলোড

ভালবাসার ধূসর রঙ

গভীর রাত। রথি শুয়ে আছে। তার চোখে ঘুম নেই। ইদানিং প্রায়ই তার এমন হয়। ঘুম আসেনা। বিছনায় মরার মত শুয়ে থাকতে ভারী কষ্ট হয় তার। পাশের রুমে বাসার সবাই ভোস ভোস করে ঘুমায়। হটাৎ রথির খুব মন খারাপ হয়। শুধু ওই কেন আরো অনেকেই ঘুমায়। ওদের বাসার দারোয়ানটাও লাঠিতে ভর দিয়ে ঘুমায় । তবুও রথি কেনো রিমির কথাই ভাবে ??  হটাৎ মুচকি মুচকি হাসি আসে রথির। ভাবে এই রিমিটা যেনো কেমন? এতোদিন একসাথে থাকে।

এতো কাছের বন্ধু অথচ রথির মনের কথা পড়তে পারেনি একরত্তি। হারামিটা শুধু শুধু কষ্ট দেয় রথিকে। হটাৎ ছাদের দিকে তাকিয়ে থাকতে থাকতে দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে আসে রথির

হটাৎ  করে উঠে বসে..

ধ্যাত সব অসহ্য।  রিমিইইইইই……. তুই যদি….. Continue reading ভালবাসার ধূসর রঙ