শহীদুল জহিরের দিকে দেখি

শহীদুর জহির (১৯৫৩-২০০৮)

১১ সেপ্টেম্বর অকালপ্রয়াত কথাসাহিত্যিক শহীদুল জহিরের জন্মদিন। মাত্র ৫৪ বছরের জীবনেই তিনি সৃষ্টি করেছেন বাংলা সাহিত্যের স্মরণীয় বেশ কিছু মুহূর্ত তার উপন্যাসে, তার গল্পে। বাংলা ভাষার এই কীর্তিমান লেখকের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি। বাঙলার পাঠশালা’র আয়োজনে ২১ অগাস্ট ২০১৩ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর সি মজুমদার মিলনায়তনে প্রয়াত কথাসাহিত্যিক শহীদুল জহিরকে নিয়ে একটি বক্তৃতা দিয়েছিলেন শাহাদুজ্জামান। সেই বক্তৃতার উপর ভিত্তি করেই তৈরি হয়েছে বর্তমান এই রচনাটি।  দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশে প্রকাশিত রচনাটি সরাসরি কপি পেস্ট করে সংরক্ষণ করে রাখলাম আগামীর জন্য। বাংলার মননশীল পাঠকের হৃদয়ে আজীবন বেঁচে থাকুক শহীদুল জহিরের রচনাগুলো এই প্রত্যাশা আমাদের সকলের। Continue reading শহীদুল জহিরের দিকে দেখি

Advertisements

বায়তুল্লাহ শরীফ বা কাবাঘর সংশ্লিষ্ট ঐতিহ্য নিদর্শন ধ্বংসের নেপথ্যে

কাবা প্রাঙ্গনের সাম্প্রাতিক সম্প্রসারণ

সাম্প্রতিক সময়ে দীর্ঘ অধ্যয়ন করছি বিভিন্ন জিওনিষ্ট কাল্ট নিযে। ফ্রিম্যাসনারি চক্রের উপর একটি প্রবন্ধ লিখতে গিয়ে অনেকটা আগ্রহী হয়েছিলাম তাদের সম্পর্কে। প্রথমে মনে হলো কি এক আজগুবি গুপ্তগোষ্ঠী, কি তাদের দৌড়ঝাঁপ, কতোই বিস্তৃত তাদের কর্মযজ্ঞ। পরিশেষে বুঝলাম হিরাম আবিফ কৃত্যের সেকেলে কুসংস্কার আঁকড়ে এরা এখনো মানুষের ক্ষতি করতে পারলেই খুশি হয়। বিধবার সন্তান হিরাম আবিফের কাছে সলোমন টেম্পলের কি নকশা ছিলো সেটা জানিনা কিন্তু তাদের অন্তরে বদ্ধমূল ধারণ যেভাবেই হোক ভাংতে হবে মসজিদুল আকসা। সেখানেই তাদের ফিলোসফারস স্টোন আছে, সেখানকার কুব্বাতুস সাখরাকে উড়িতে দিলেই দেখা মিলবে অল্টার অব ডেভিডের। যাইহোক বিষয় সেটা নয়। এই ফ্রিম্যাসনদের সম্পর্কে পড়তে গিয়েই জিওনিস্ট কাল্টে বেনজিন চিহ্নের গুরুত্ব সম্পর্কে জানতে পেরেছিলাম। বাংলায় একে আমরা ষড়ভুজ বা ইংরেজিতে হেক্সাগন বলতে পারি। অবাক বিস্ময়ে লক্ষ করা যাচ্ছে Continue reading বায়তুল্লাহ শরীফ বা কাবাঘর সংশ্লিষ্ট ঐতিহ্য নিদর্শন ধ্বংসের নেপথ্যে